Thursday , April 9 2020
Breaking News
You are here: Home / শিক্ষার খবর / আগস্ট পর্যন্ত কুয়েতে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ
আগস্ট পর্যন্ত কুয়েতে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

আগস্ট পর্যন্ত কুয়েতে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কুয়েত সরকার জনগণ ও অভিবাসীদের ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। কোনো ব্যক্তি এই নির্দেশ লঙ্ঘন করলে তাকে ৫ হাজার দিনার জরিমানা সেই সঙ্গে ৩ মাসের জন্য প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার দেশটির তথ্য মন্ত্রণালয় এক সংবাদ সম্মেলনের সময় বাড়িয়ে স্কুল মাদরাসা আগামী আগস্টের ৩ তারিখ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। এ ছাড়াও পূর্বের নির্দেশনা মোতাবেক দেশটির ধর্ম মন্ত্রণালয় আওকাফ জুমার নামাজের পরিবর্তে ৪ রাকাত জোহরের নামাজ বাসায় আদায় করতে বলা হয়েছে।

পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশটিতে দুই সপ্তাহ সাধারণ ছুটি চলছে। এ সময়ে সবধরনের অনুষ্ঠান, সভা সেমিনার যে সকল স্থানে লোকসমাগম বেশি হয় সেই সব স্থানসহ সবধরনের ফ্লাইট, গণপরিবহন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, মসজিদ, বিনোদন কেন্দ্রগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

বন্ধের আওতায় থাকবে না কার্গো বিমান, কো-অপারেটিভ সোসাইটি, ফার্মেসি, পেট্রল পাম্প, এটিএম বুথ খোলা থাকবে। এ ছাড়াও খাবার হোটেলগুলো হোম সার্ভিস ও পার্সেল বিক্রি করতে পারবে তবে ভেতরে বসে খেতে পারবে না। এছাড়াও জরুরি যে সকল দোকানপাট খোলা রয়েছে সে সকল দোকানে একসঙ্গে ৫ জনের বেশি ক্রেতা প্রবেশ করতে পারবে না। প্রয়োজন ছাড়া বাহিরে বের না হতে এবং অধিক লোক এক সঙ্গে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করা হয়েছে।বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে প্রবাসীদেরকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে বলা হয়েছে এবং দূতাবাস ও কুয়েত সরকারের গৃহীত আইন ও দিকনির্দেশনা মেনে চলতে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে। যে কোনো ধরনের তথ্য ও পরামর্শের জন্য দূতাবাসের হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে লুকিয়ে থাকলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানানো হয়েছে। যদি কোনো ব্যক্তি লোক সমাগমে ঘুরে বেড়ায় তাকে ৫ বছরের কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার থেকে ৫০ হাজার দিনার জরিমানা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

বিশ্বে এখন সবচেয়ে বেশি আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। এখন পর্যন্ত ১৭৯টি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। সারাবিশ্বে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬১৩ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ১০ হাজার ৪৮ জন। এছাড়া চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৮৮ হাজার ৪৩৭ জন।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top