Friday , July 10 2020
Breaking News
You are here: Home / বিদেশ / ভারতের তামিলনাড়ু সরকারের রায়: ধর্মহীন এবং বর্ণহীন মানুষ স্নেহা পার্থিবরাজ
ভারতের তামিলনাড়ু সরকারের রায়: ধর্মহীন এবং বর্ণহীন মানুষ স্নেহা পার্থিবরাজ

ভারতের তামিলনাড়ু সরকারের রায়: ধর্মহীন এবং বর্ণহীন মানুষ স্নেহা পার্থিবরাজ

আব্বাস আলী:

স্নেহা পার্থিবরাজ (৩৫) পেশায় আইনজীবি এই ভদ্রমহিলার বাড়ি তামিলনাড়ুর তিরুপাত্তুর। স্নেহা পার্থিবরাজ ব্যতিক্রমী এক কাণ্ড ঘটিয়েছেন। কাণ্ড বললেও ভুল হবে,বলা উচিত বিপ্লব। স্নেহা পার্থিবরাজ নি:শব্দ বিপ্লবই ঘটিয়েছেন সেটা।

স্নেহা পার্থিবরাজ ভারতের মতো ধর্ম ও বর্নে শত বিভক্তি দেশে কিভাবে অসাধ্যকে সাধান করে দেখালেন বড় বিস্ময় সেই গল্প। ভারতের প্রথম মহিলা যাঁর কোনো ধর্ম নেই এবং বর্ণও নেই। স্নেহা পার্থিবরাজ সেই স্বীকৃতি তিনি আদায় করেছেন দীর্ঘ লড়াইয়ের পর খোদ তামিলনাড়ু সরকারের কাছ থেকে।

স্কুল জীবন থেকেই তিনি বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রে ধর্ম ও বর্ণের ঘরটা ফাঁকা রাখতেন। পরবর্তী কালে ২০১০ সাল নাগাদ তিনি আইনি লড়াই শুরু করেন। পাশে পেয়ে যান তাঁর স্বামী পার্থিবরাজকে। দীর্ঘ লড়াইয়ের পর মেলে স্বীকৃতি। ভারতের তামিলনাড়ু সরকার গত ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে স্নেহা পার্থিবরাজকে সনদ পাঠান। স্নেহা পার্থিবরাজ এখন থেকে নিজেকে ধর্মহীন এবং বর্ণহীন মানুষ হিসেবে পরিচয় দিতে পারবে। সরকার রায়ে আরো উল্লেখ করেন, এখন থেকে স্নেহা পার্থিবরাজ একমাত্র পরিচয় ভারতীয়।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!