Tuesday , September 29 2020
Breaking News
You are here: Home / ঢাকা ও ময়মনসিংহ / ১০ চাকার বালুর ট্রাকের অবাধ চলাচলে বেহাল দশা বেলগাছি সড়কের 
১০ চাকার বালুর ট্রাকের অবাধ চলাচলে বেহাল দশা বেলগাছি সড়কের 

১০ চাকার বালুর ট্রাকের অবাধ চলাচলে বেহাল দশা বেলগাছি সড়কের 

বিধান কুমার বিশ্বাসঃ

রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের বেলগাছি সড়কে বালু বাহী ১০ চাকার ট্রাকের অবাধ চলাচলের কারনে খানা-খন্দরে পরিপূর্ণ গান্ধীমারা-বেলগাছী আঞ্চলিক সড়ক। গান্ধীমারা এলাকা থেকে বালুবাহী ট্রাক প্রতিনিয়ত এই রুটে চলাচল করছে। এতেখানা খন্দরে সৃষ্টি হওয়ায় প্রতিনিয়ত ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে এলাকাবাসী । বালুবাহী ট্রাকের বালু পথচারীদের চোখ মুখ সহ শরীর সাদা হয়ে যায়। এ রাস্তায় বড় বড় ১০চাকার ট্রাক চলাচলের কারনে যেমন রাস্তার ক্ষতি হচ্ছে তেমনি ক্ষতি হচ্ছে ভ্যানচালকদের। এই এলাকার অনেকেই ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। বড় এই ট্রাকেরপাশ দিয়ে সেগুলো যাত্রী নিয়ে যেতে পারেনা।কোন মত চলাচল করলেও দুর্ঘটনার শঙ্কাও রয়েছে অনেক টা। এলাকাবাসী অভিযোগকরে বলেন,এ রাস্তায় ১০ চাকার ট্রাক অবাধে চলাচল করে রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ করেছে আর আমরা এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারিনা। গায়ের কাপড় চোপড় সব ধুলায় অন্ধকার হয়ে যায়। ট্রাকের চলাচল গান্ধীমারা হয়ে বেলগাছী বাজার দিয়ে ধাওয়াপাড়া ধাওয়াপাড়া থেকে বালু বোঝাই করে রাজবাড়ী মহা সড়ক দিয়ে বিভিন্ন স্থানে চলে যায়। বেলগাছী বাজারে ট্রাকের কারনে প্রতিনিয়ত জ্যাম লেগেই থাকে ,এতে ভোগান্তিতে পরে দোকানদার ,পথচারীরা। বৃষ্টিতে কাদা আর রোদে ধুলাবালি তাদের নিত্যনৈমত্তিক

ঘটনা। এবিষয়ে কথা হয় বেলগাছি ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আকরাম হোসেন জানান, ১০ চাকার বড় বড় ট্রাকের কারনে বাজারে জ্যাম লেগেই থাকে আর দোকানদারেরা সহ পথচারীরা খুবই বিপাকে আছি। এলাকায় আগুন লাগলে বা কেউ অসুস্থ্য হলে ট্রাকের কারনে জরুরী সে বা পাওয়া সম্ভব নয়। এ নিয়ে প্রশাসন ও অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের

বলেছি কোন লাভ হয় নি।এখানে বিট পুলিশিং এর উদ্ভোধনের সময় সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদারকে বিষয়টি জানালে তিনি আশ্বাস দেন সমাধানের ,কিন্তু দুই মাস পরেও কোন সমাধান হয় নি। ভ্যান চালকেরা অভিযোগ করে জানান, বড় বড় ট্রাকের কারনে আমাদের চলাচল খুবই কষ্ট হয়। চাপা রাস্তায় বড় বড় ট্রাক ঢুকলে ভ্যান নিয়ে আমাদের চলাচল খুবই কষ্টের হয়। এ ব্যাপারে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তারা।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!