Tuesday , October 20 2020
Breaking News
You are here: Home / বিনোদন / সংগীতশিল্পী পুতুলকে ধর্ষণের হুমকি, নিচ্ছেন আইনি পদক্ষেপ
সংগীতশিল্পী পুতুলকে ধর্ষণের হুমকি, নিচ্ছেন আইনি পদক্ষেপ

সংগীতশিল্পী পুতুলকে ধর্ষণের হুমকি, নিচ্ছেন আইনি পদক্ষেপ

নিউজরুম এডিটরঃ
দেশব্যাপী ধর্ষণকাণ্ডের অস্থির এই সময়ে সংগীতশিল্পী সাজিয়া সুলতানা পুতুলকে সামাজিক মাধ্যমে ধর্ষণের হুমকি দিয়েছেন এক তরুণ। প্রকাশ্যে ফেসবুকে করা ওই তরুণের মন্তব্যের স্ক্রিনশট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন গায়িকা।
কিন্তু কোনোরকম আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার আগেই ওই তরুণ ক্ষমা চেয়ে একটি ভিডিও বার্তা প্রদান করেন। ফলে ক্ষমা চাওয়ায় আইনি পদক্ষেপ নেওয়া থেকে বিরত থাকেন পুতুল।বিষয়টি নিয়ে পুতুল ফেসবুকে লেখেন, ‘ধর্ষণের ইচ্ছা পোষণ করা ছেলেটি প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়েছে তার মন্তব্যের জন্য। তার ভাষ্য মতে, তার আইডি থেকে অন্য কেউ মন্তব্যটি করেছে! ঘটনা সত্যি হোক বা মিথ্যা, প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্তটি স্থগিত করেছি। তা না হলে মামলার জাঁতাকলে তার বেঁচে থাকা দায় হতো এবং সেটাই হওয়া উচিত। ’এদিকে ক্ষমা চাওয়ার ভিডিও পোস্ট করার পর ফের ‘ক্ষমা চাওয়া’র ভিডিওটি সরিয়ে ফেলে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া তরুণ। এতে পুতুল মনে করছেন, ছেলেটি চালাকি করছে। তিনি মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকালে ফেসবুকে লিখেছেন, ‘ধর্ষণ করতে চাওয়া ছেলেটা ক্ষমা চেয়ে পোস্ট করা ভিডিও বার্তাটি সরিয়ে ফেলেছে। ক্ষমা করার সিদ্ধান্তটা ভুল ছিল মনে হচ্ছে। তাই শেষ পর্যন্ত আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছি!’

এ বিষয়ে পুতুল বাংলানিউজকে জানান, বুধবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি করবেন তিনি। এরপর মামলা করার কথাও ভাবছেন। গায়িকা বলেন, ‘শুধু তারকা নয়, সবাইকে এই ব্যাপারগুলো সামনে আনতে হবে। হুমকি পেয়ে, হেনস্তা হয়ে চুপ করে বসে থাকার কারণে এই ধরনের পুরুষদের সাহস বেড়ে গেছে। ফেসবুকে যারা এমন করে থাকেন, তাদের নাম, পরিচয়, অ্যাকাউন্ট লিংকসহ প্রকাশ করে দিতে হবে। এভাবে সচেতনতা বাড়াতে পারলে এই ধরনের অপরাধ কমতে বাধ্য। ’

ধর্ষণ সম্পর্কে নারীদের সচেতন হতে পুতুল বলেন, ‘সরাসরি ধর্ষণ কিংবা ধর্ষণের ইঙ্গিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাওয়া মাত্র রুখে দাঁড়াও। আইন কিন্তু নারীর পক্ষে। ভয় নয়, আওয়াজ তোলো। তোমার দৃঢ়চেতা মনোভাবই কিন্তু ধর্ষকের ভিত্তি নাড়িয়ে দেবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘ধর্ষক এবং ভবিষ্যৎ-ধর্ষকদের বলছি, খুব সাবধান! সময় পাল্টাচ্ছে! ‘ধর্ষণ’ শব্দটা উচ্চারণের আগেও নিজের এবং পরিবারের কথা ভেবে নিস। তোর/তোদের জীবন নরকে পরিণত হয়ে যাবে কিন্তু! মুখ লুকানোর জায়গা পাবি না।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!