Tuesday , December 1 2020
You are here: Home / রাজশাহী ও রংপুর / রেশম কারখানায় ১০ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে: বাদশা
রেশম কারখানায় ১০ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে: বাদশা

রেশম কারখানায় ১০ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে: বাদশা

রাজশাহী অফিস : রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, রাজশাহী রেশমের নগরী। আমি রেশম কারখানার দায়িত্ব নিয়েছি। তাই এই শিল্পকে বাঁচাতে হবে। ইতিমধ্যেই এখানে ১৯টি লুম চালু হয়েছে। আমি ৬১টি লুমই চালু করব। তাহলেই রাজশাহীতে নতুন করে আরও ১০ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী মহানগরীর মালদা কলোনীর আটকোশী উচ্চ বিদ্যালয়ের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে তিনি বিদ্যালয়ের ছয়তলা একাডেমিক ভবনের নির্মাণ কাজ ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন। পরে তিনি বক্তব্য দেন।
তিনি আরও বলেন, আমাদের রাজশাহীকে উন্নতির দিকে এগিয়ে নিতে হলে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। এক্ষেত্রে রেশম কারখানা কর্মসংস্থানের অন্যতম একটি জায়গা হতে পারে। আমি এখানে ৬১টি লুমই চালু করার ব্যবস্থা করব। তাহলে রাজশাহীসহ আশেপাশের জেলাগুলোর মানুষেরও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। কর্মসংস্থান হলেই প্রকৃত উন্নয়ন হবে।
শুধুমাত্র রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হলেই দেশের উন্নয়ন হয় না। কর্মসংস্থানের দিকে রাজশাহী অনেক পিছিয়ে আছে। আমাদের এখানে কোন শিল্প প্রতিষ্ঠান এখনও গড়ে ওঠেনি। তাই আমরা রাজশাহীর শিক্ষিত ছেলে-মেয়েদের কাজে লাগাতে পারছি না। আমি আগেও সরকারের কাছে আবেদন করেছি, এখনও রাজশাহীতে শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য আবেদন করব। এটা করতে হবে।
রাজশাহীর শিক্ষাব্যবস্থার সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি বলেন, শিক্ষা সার্বজনীন ব্যাপার। শিক্ষা পাবার মৌলিক অধিকার সবার আছে। শিক্ষানগরীর হিসেবে রাজশাহীর যে পরিচিতি সেটা প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা আমি সবসময় করেছি। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, একটা সময় রাজশাহীর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অনেক খারাপ অবস্থা ছিল। কিন্তু এখন আর কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমন খারাপ অবস্থা নেই। রাজশাহীর সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই সুউচ্চ ভবন গড়ে উঠেছে। এখন শিক্ষার্থীরা ভাল পরিবেশে পড়াশোনা করতে পারছে।
আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের রাজশাহীর নির্বাহী প্রকৌশলী রেজাউল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, প্রধান শিক্ষিক শিউলী খাতুন প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নান। সভায় পরিচালনা করেন স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক দেওয়ান নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!