Saturday , February 27 2021
You are here: Home / চট্টগ্রাম ও সিলেট / সিলেটে পাথরখেকো লিয়াকতের সম্পদের পাহাড়; দুদকের চার্জশিট
সিলেটে পাথরখেকো লিয়াকতের সম্পদের পাহাড়; দুদকের চার্জশিট

সিলেটে পাথরখেকো লিয়াকতের সম্পদের পাহাড়; দুদকের চার্জশিট

এমদাদুল হক সোহাগ, সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী। পরিবেশ ধ্বংস করে পাথর উত্তোলনসহ নানাভাবে গড়েছেন অবৈধ সম্পদের পাহাড়। জনশ্রুতি আছে ‘লিয়াকতের সম্পদের সঠিক হিসেব নিজেও জানেন না।’ পাথর কোয়ারি নিয়ে খুনাখুনিসহ কোন কিছুই বাদ রাখেননি তিনি। এমনকি সংবাদ সংগ্রহের সময় আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের উপর হামলার নজীরও গড়েছেন পাথরখেকো লিয়াকত। রাজাকারপূত্র হিসেব তাকে নিয়ে আছে সমালোচনা। আওয়ামী লীগের স্থানীয় সাংসদ ইমরান আহমদের নাম ভাঙিয়ে অবৈধভাবে শতকোটি টাকার মালিক হয়েছেন এমন অভিযোগে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অতীতে সংবাদ সম্মেলনও করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।
কেবল তাই না, ‘পাথরখেকো লিয়াকতের অবৈধ সম্পদের পাহাড়’ এমন প্রবাদ লোকমুখে থাকলেও এবার এর কিছু হিসেব পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক। অবৈধ সম্পদের ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে দুদকের করা মামলায় চার্জশিটও দাখিল করা হয়েছে। গত ২৭ জানুয়ারি তারিখে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ ও সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন দুদক সিলেট জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ইসমাইল হোসেন।
২ কোটি ৭৩ লাখ ৯ শত ৫২ টাকার অবৈধ সম্পদ সংরক্ষণের অপরাধে তার বিরুদ্ধে দাখিলকৃত একটি মামলায় এ চার্জশিট দেওয়া হয়।
এর আগে ২০১৯ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি তারিখে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা থানায় মামলা করেন দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. সাইদুজ্জামান। পরবর্তিতে মামলার তদন্তভার পড়ে সিলেট জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ইসমাইল হোসেনের উপর। দীর্ঘ তদন্ত শেষে এ মামলায় লিয়াকতের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন তিনি।
দুদক সূত্রে জানা যায়, দুদকের পক্ষ থেকে লিয়াকতের সম্পদের হিসেব চাওয়া হলে তিনি স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে মোট ১ কোটি ৩৪ লক্ষ, ১২ হাজার ৯ শত ১৪ টাকা ও অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে ৮১ লক্ষ ৭৪ হাজার ৮ শত ১৩.০৮ টাকা দেখালেও তিনি সম্পদের প্রকৃত হিসেব গোপন করেন। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। পরে তদন্ত করে দেখা যায় ব্যবসা ও দান হিসেবে তিনি বৈধভাবে সম্পদ অর্জন করেছেন মাত্র ৫৯ লক্ষ ৭৮ হাজার ৮ শত ৭৮ হাজার টাকা। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে লিয়াকতের নামে স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি মিলে ৩ কোটি ৩২ লাখ ৮৭ হাজার ৯ শত ৩০ টাকা পরিমাণ। সে হিসেবে লিয়াকতের অবৈধ সম্পদের পরিমাণ ২ কোটি ৭৩ লাখ ৯ শত ৫২ টাকা।
এ ঘটনায় জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাথখেকো হিসেবে পরিচিত লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন-২০০৪ এর ধারা ২৭ (১) ও ২৬ (২) আওনুযায়ী অবৈধ সম্পদ ভোগদখল ও মিথ্যা তথ্য প্রদানে অপরাধ করেছেন মর্মে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করা হয়।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!