Saturday , May 8 2021
You are here: Home / ব্রেকিং নিউজ / তাহলে অনৈতিকতার বিরুদ্ধেই করোনার আক্রমণ: হাসান টুটুল
তাহলে অনৈতিকতার বিরুদ্ধেই করোনার আক্রমণ: হাসান টুটুল

তাহলে অনৈতিকতার বিরুদ্ধেই করোনার আক্রমণ: হাসান টুটুল

 

“আগামী মাসের শুরুতে এ সিরাম ইন্সটিটিউটের কাছ থেকেই বাংলাদেশের ৫০ লাখ ডোজ টিকা পাওয়ার কথা ছিল। টিকার জন্য অগ্রিম হিসেবে ৬০০ কোটি টাকা সিরামের অ্যাকাউন্টে জমাও দেয়ার কথা জানিযে়ছে বাংলাদেশ সরকার। কিন্তু পর দিনই টিকা রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞার খবর এলো। ”
লাগাতার মৃত্যু সংবাদের মাঝে এটাই ছিলো এ সপ্তাহের প্রতারণার মর্মান্তিক সংবাদ। বিশ্ব যখন একসাথে করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে তখন বন্ধু প্রতীম ভারতের কাছ থেকে এ ধরনের ঘোষণা অনপ্রিভেত।
২০ লক্ষ টিকা উপহার, মাসে ৫০ লক্ষ টিকা বিক্রয় এবং ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মি. মোদীর বাংলাদেশ সফরকালে ১২ লক্ষ টিকা সাথে করে নিয়ে আন্তরিক উপহারে করোনার বিরুদ্ধে একসাথে লড়াইয়েরই সহযোদ্ধার ভূমিকায় দেখতে পেয়েছিলো।
চুক্তিভিত্তিক অগ্রিম টাকা পেমেন্ট গ্রহন করার পরও টিকা প্রদানের নিষেধাজ্ঞায় হতবিহ্বল বাংলাদেশসহ বিশ্ব করোনাযোদ্ধারা।
ভারতীয় নীতিনির্ধারকদের জীবন মরণের ক্ষেত্রে এমন খামখেয়ালীপূর্ণ আচরণ অগ্রহনযোগ্য। এটা অনৈতিক এবং অমানবিক। এই অনৈতিক এবং অমানবিকতার কারণেই স্রষ্টা অদৃশ্য এক জীবানু মনুষ্য সমাজে ছেড়েছেন যা নিয়ন্ত্রণের কোনে ক্ষমতাই এখনো বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করতে সঠিক পথে পৌঁছাতে পারেনি বলে ৩৭ জন নোবেল পদার্থবিদ ও বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীরা অভিমত দিয়েছেন।
এটা একটি এমন রোগ যেটা প্রতিরোধের সক্ষমতা অর্জনে সবার আগে মানবিকতা দেখাতে হবে। সহমর্মিতা প্রদর্শনে একে অপরের পাশে ও সাথে এসে দাড়াতে হবে। অনৈতিক এবং অমানবিকতার এমন নৃশংস সিদ্ধান্তকে সেরাম টিকা আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান বেঙ্মিকো’র পরিচালক ও বিসিবির চেয়ারম্যান মি. পাপন ভারতের বিরুদ্ধে ‘শক্ত স্টেপ’ নেবার দাবী জানিয়েছেন।
সারাবিশ্ব আতঙ্কিত, হাহাকার চারপাশ, কি যেন একটা শব্দ, একটা ভাইরাস<করোনা। মানুষ যেন মানুষের সাথে আগের মত চলাফেরা, মেলামেশা করেনা, যেদিকে যায় সেদিকেই শুনি মৃত্যুর আর্তনাদ, চিৎকার। গণমাধ্যমের কারণে জানা যাচ্ছে খুব সাধারণ এবং গরীব মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে কম। মৃত্যুহারও কম। যারা করোনায় মারা যাচ্ছে তাদের মধ্যের মানুষগুলোর দিকে কিছু মানুষের মুখের দিকে, তার পেছনের সময়টা খেয়াল করুন, বেশকিছু মানুষ ছিলো মানুষের জন্য, মানবতার জন্য ক্ষতিকর। যদিও সকল মৃত্যুই ব্যাথিতের। জীবন একটিই, তাই তাকে সদ্ব্যবহার করাটাই শ্রেয়। সমাজে, রাষ্টে্র বিশ্বে অমানবিকতার বিরুদ্ধে যেতে যেতে এক সময় প্রকৃতি তাদের ক্লান্ত করে দেয়। তাদের গতি রোধ করে দেয়।

বিশ্বগ্রাসী কোভিডের এই মুমুর্ষ অমানবিক দুঃসময়ে যারা অতিদলীয় কাউয়া, ক্ষমতাকে খুব ভালোবাসেন এমন কথিত পেইড এজেন্ট লিখিয়েদের একটি অংশ বিভিন্ন প্লাটফর্মে রাজনীতির কড়চা উপস্থাপনে ব্যক্তিচরিত্র হননে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। যেন ভারতের ভ্যাক্সিন প্রদানে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি জনমানুষের কাছে না পৌঁছায়। তাদের লেখায় আশা জাগানিয়া কিছু নেই, আছে শুধু বিষোদাগার। ভিন্নখাতে দৃষ্টি প্রবাহের চেষ্টা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার খুব কাছের লোক হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করার নোংরা প্রতিযোগিতা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিষয়টি নিয়ে বিরক্তও প্রকাশ করেন মাঝে মধ্যে। তিনিও দেখেছেন বঙ্গবন্ধুর এতো সৈনিক থাকা স্বত্বেও মাঝ সিড়িতে তার লাশটা কেন দীর্ঘ সময় পড়েছিলো, কোথায় ছিলো তখন এই সমস্ত বিপ্লবীরা বা তাদের উত্তরসূরীরা। কারণ তিনিও জানেন, খন্দকার মোশতাকও ছিলেন বঙ্গবন্ধুর খুব কাছের ও অতিবিশ্বস্ত সঙ্গী।
অবস্থা দৃষ্টে মনে হচ্ছে গোপন কোনো মিশন বাস্তবায়নের এজেন্ডায় নেমেছে, যাতে টিকা নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করা যায়।

মুক্ত হোক মহামারী থেকে, শান্তিতে চলাফেরা করবে মানুষ, এর একটিই উত্তর, মানবতার বিরুদ্ধের মানুষগুলোর কারণে আসা এই অতিমারী ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে হলে আমাদের সকলকে সবার আগে মানবিক হতে হবে।
*

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!