Monday , August 2 2021
You are here: Home / চট্টগ্রাম ও সিলেট / চট্টগ্রামে ভয়ঙ্কর রূপে ‘করোনা’: লাগাম টানতে না পারলে বিপর্যয়ের আশঙ্কা !
চট্টগ্রামে ভয়ঙ্কর রূপে ‘করোনা’: লাগাম টানতে না পারলে বিপর্যয়ের আশঙ্কা !

চট্টগ্রামে ভয়ঙ্কর রূপে ‘করোনা’: লাগাম টানতে না পারলে বিপর্যয়ের আশঙ্কা !

 

চট্টগ্রামে প্রতিদিনই রেকর্ড ভাঙছে করোনায় আক্রান্ত ও প্রাণহানির হার ও সংখ্যায়। করোনার এই প্রকোপর থেকে কোনোভাবেই নিস্তার মিলছে না। বরং সংক্রমণ রোধে সরকারের দেয়া লকডাউনের মধ্যেই তীব্র হচ্ছে এ ভাইরাস। অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে শনাক্তের নতুন রেকর্ড হয়েছে। বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭১৩ জন। যা একদিনের হিসাবে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এ সময়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৯ জন। করোনা শনাক্তের হার ৩৩ দশমিক ৮০ শতাংশ। এর আগে মঙ্গলবার (৬ জুলাই) সর্বোচ্চ ৬৬২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এর আগে বুধবার (৭ জুলাই) চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন ৬১১ জন। মারা গিয়েছিল চারজন। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) করোনা আক্রান্ত হয়েছিল ৬৬২ জন। এ সময়ে মারা গেছেন আরও নয় জন।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, সারাদেশের মতো চট্টগ্রামের সংক্রমণও ঊর্ধ্বমুখী। এমন পরিস্থিতিতে অবশ্যই উদ্বেগের। তবুও মানুষ কিছুতেই সচেতন হচ্ছে না। বরাবরই বলা হয়ে আসছে, স্বাস্থ্যবিধি ও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে। কিন্তু আমরা তাতে পুরোই উদাসীন। সংক্রমণ এখন গ্রাম পর্যায়েও ছড়িয়ে পড়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে সবাইকে চরম খেসারত দিতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, চট্টগ্রামের ১০টি ও কক্সবাজারে একটি ল্যাবে ২১০৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ৪৭৭ জন এবং বিভিন্ন উপজেলার ২৩৬ জন রয়েছেন। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৬২ হাজার ৯১৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১২৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে ৭৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। এছাড়া বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৬৪৭ জনের মধ্যে ১৪৯ জন, চমেক হাসপাতাল ল্যাবে ১৭৮ জনের মধ্যে ৬২ জন, চট্টগ্রাম ভেটেনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৬০ জনের মধ্যে ৫৩ জন, শেভরন ক্লিনিক ল্যাবে ১৮২ জনের মধ্যে ৪৫ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৩৮ জনের মধ্যে ২৫ জন, জেনারেল হাসপাতাল ল্যাবে ৩৮ জনের মধ্যে ২৪ জন, ইপিক হেলথ কেয়ারে ১০১ জনের মধ্যে ৫২ জন, ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১২২ জনের মধ্যে ৪৪ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়। একই সময়ে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৪০ জনের নমুনা পরীক্ষায় কারও শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া যায় নি। এছাড়া চট্টগ্রামে এন্টিজেন টেস্টে ৪৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৮৪ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!