Thursday , September 16 2021
You are here: Home / অন্যান্য / রাজবাড়ীতে মাইকিং ছাড়াই বন্ধ বিদ্যুৎ- দুর্ভোগে এলাকাবাসী
রাজবাড়ীতে মাইকিং ছাড়াই বন্ধ বিদ্যুৎ- দুর্ভোগে এলাকাবাসী

রাজবাড়ীতে মাইকিং ছাড়াই বন্ধ বিদ্যুৎ- দুর্ভোগে এলাকাবাসী

রাজবাড়ী অফিসঃ  রাজবাড়ী সদর উপজেলার সূর্যনগর ফিডারের ওজোপাডিগো লিঃ এর বিদ্যুৎ সকাল ৬ টা থেকে সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত দীর্ঘ ৬ ঘন্টার বেশী বন্ধ ছিলো বিদ্যুৎ সরবরাহ । এলাকায় কেন বিদ্যুৎ বন্ধ ছিলো এ খবর জানেন না এলাকাবাসী। এমনকি জানেন না রাজবাড়ী ওজোপাডিগো লিঃ এর প্রকৌশলী নিজেও।

বিদ্যুৎ অফিস সূত্রে জানাগেছে, সূর্যনগর ফিডার থেকে চন্দনী ইউনিয়ন, বানিবহ ইউনিয়ন, বেলগাছি ,রামকান্তপুর নিউনিয়ন সহ কয়েক হাজার মানুষের বাড়ীতে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। কিন্ত এভাবে না জানিয়ে দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ বিহীন হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী। তারা জানান, মাঝে মাঝেই এধরনের কাজ করে। আমরা জানিনা কেন বিদ্যুৎ থাকেনা। আবার হটাত বিদ্যুৎ চলে যায় আবার হটাত চলে আসে। এভাবে ঘণ ঘণ বিদ্যুতের আসা যাওয়ার কারনে অনেকেরই টিভি ,ফ্রিজ নষ্ট হচ্ছে বলে জানান।

এলাকাবাসীরা অভিযোগ করে জানান, সরকার যেখানে শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিত করেছেন। কিন্ত কর্মকর্তাদের এধরনের কাজের কারনে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

এ বিষয়ে রামকান্তপুর ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য খালেক মোল্লার ছেলে ইব্রাহীম জানান, সকাল থেকেই আমাদের এলাকায় বিদ্যুৎ ছিলোনা। শুনেছি গাছের ডালপালা নাকি কাটছে বিদ্যুতের লোকজন। কিন্ত এলাকাতে বিদ্যুৎ বন্ধের কোন ঘোষনা করা হয় নি। মাঝে মাঝে তারা এমন করে ,গ্রামের মানুষকে তারা মানুষ মনেই করে না।

এ বিষয়ে চন্দনী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ জানানা, সকাল থেকে আমাদের এলাকায় বিদ্যুৎ ছিলো না। পৌনে ১ টার দিকে হয়তো এসেছে। কেন বিদ্যুৎ ছিলো না ,তার কারন তিনিও জানেন না। তিনি আরো জানান, আমাদের এখানে মাঝে মাঝেই বিদ্যুৎ থাকেনা । কোন মাইকিং নাই কিছু নাই বিদ্যুৎ নিয়ে যায়। আমরা তাদের সাথে পারিনা।

জানাগেছে, শুক্রবার ১৩ই আগষ্ট সকাল ৬ টা থেকে বিদ্যুৎ চলে যায়। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিও হচ্ছিলো সকাল থেকেই। শুক্রবার হবার কারনে এলাকার মুসল্লিরা অনেকেই সক্লা সকাল গোসল করে মসজিদে যান। বৃষ্টির কারনে অনেকেই অপেক্ষায় ছিলেন বিদ্যুৎ এলে মটোর চালিয়ে গোসল করে মসজিদে যাবেন। কিন্ত বিদ্যুৎ না থাকায় অপেক্ষা করে বৃষ্টি থামার পর টিওবয়েল থেকেই গোসল করে মসজিদে যেতে হয়েছে।

অন্য দিকে সকাল থেকেই গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হবার কারনে অনেক মহিলারা যারা রান্না ঘড়ে যেতে পারেন নি,তারা  বিদ্যুতের জন্য অপেক্ষায় ছিলেন বিদ্যুৎ এলে রাইস কুকারের মাধ্যমে রান্না সারবেন। কিন্ত বিদ্যুৎ না থাকায় অনেকেই সকালের খাবার খেতে পারেন নি।আর যেহেতু দেশে করোনা পরিস্থিতি সে কারনে অনেকেই বৃষ্টিতে ভিজতে চান নি।

প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ করে অনেকেই জানান, আমরা গ্রামের মানুষ তাই বিদ্যুতের লোকজন আমাদের হয়তো মানুষ ই মনে করে না। সময় সময় বিদ্যুৎ যায় আবার চলে আসে। কিন্তু আজকে কখন বিদ্যুৎ আসবে কিছুই বুঝতে পারছিনা।

এ বিষয়ে জানার জন্য রাজবাড়ী ওজোপাডিগো লিঃ এর কন্ট্রোল রুম নাম্বার – ০২৪৭৮৮০৭৩৯৯ নাম্বারে সকাল ৮ টা ৫৮ মিঃ ফোন করা হলে সোহরাব হোসেন( এস বি এ) জানান, লাইন বন্ধ দেখা যাচ্ছে হয়তো কোথাও কোন ফল্ট হয়েছে। আমাদের লোক কাজ করছে দ্রুতই পেয়ে যাবেন। কি কি কারনে বিদ্যুৎ ফল্ট হতে পারে এ প্রশ্নে তিনি জানান, বাদুর,কবুতর এমন কি টিকটিকিও যদি বিদ্যুতের তারের সাথে লাগে তাহলেও বিদ্যুৎ ফল্ট হতে পারে। আবার বিদ্যুতের তারের উপর গাছের ডালপালা পরলেও বিদ্যুৎ ফল্ট হতে পারে। তবে আমাদের লোকজন আছে দ্রুতই বিদ্যুৎ পেয়ে যাবেন।

এ বিষয়ে জানতে সূর্যনগর ফিডারের উপ সহকারী প্রকৌশলী ফরিদুজ্জামানের মোবাইলে ১০ টা ২২ মিনিটে ফোনা করা হলে তিনি জানান, বিদ্যুতের লাইনের কাজ চলছে। লাইনের পাশে গাছের ডালপালা কাটা হচ্ছে,এজন্য বিদ্যুৎ বন্ধ আছে। বেলা ১২ টার পর লাইন চালু করা হবে। লাইনের কাজের কারনে বিদ্যুৎ বন্ধ থাকবে এ বিষয়ে কি কোনা ঘোষনা বা মাইকিং করা হয়েছিলো কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, গ্রামে কাজ করার সময় কোন মাইকিং করার দরকার হয় না। যখন আমরা শহরে কাজ করি তখন মাইকিং করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে ওজোপাডিগো লিঃ এর নির্বাহী  প্রকৌশলী আমিনুর  রহমান এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, দীর্ঘ সময় যে কোন যায়গায় বিদ্যুৎ বন্ধ করে কাজ করতে হলে অবশ্যই মাইকিং করতে হবে। আজ কোথায় কাজ করছে সেটা আমার জানা নেই। আমি ফরিদুজ্জামানের সাথে কথা বলবো।কেন এটা করলো,বা কি হয়েছিলো।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!