Thursday , September 16 2021
You are here: Home / চট্টগ্রাম ও সিলেট / কক্সবাজারের ২ পৌরসভা ও ১৪ ইউপি নির্বাচন প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা
কক্সবাজারের ২ পৌরসভা ও ১৪ ইউপি নির্বাচন প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

কক্সবাজারের ২ পৌরসভা ও ১৪ ইউপি নির্বাচন প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

কাইমুল ইসলাম ছোটন (কক্সবাজার প্রতিনিধি):
করোনার কারণে দুই বার স্থগিতের পর ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কক্সবাজারের দুই পৌরসভা ও ১৪ ইউপি নির্বাচন। পৌরসভা ও ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরগরম এখন কক্সবাজার। প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রার্থীরা। সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেক প্রার্থী। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মত বিনিময় সভায় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট হবে জানিয়েছেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক।
অনেকদিন পর নির্বাচনের ফলে উৎসব আমেজ চারদিকে। নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর দিনরাত ভোটারদের ঘরে ঘরে ঘুরছেন প্রার্থীরা। বিভিন্ন ভাবে মন জয় করার চেষ্টা করছেন ভোটারদের। দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি। তবে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। মাক্স পড়ছে না কেউ। ফলে ভোটের লড়াইয়ে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। অনেকের বিরুদ্ধে নির্বাচনের আচরণ বিধি ভঙ্গ করার অভিযোগ ওঠেছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায় নি।
কে নির্বাচিত হচ্ছেন? এই নিয়ে চলছে পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তি। পাশাপাশি এসব আলোচনায় গুরুত্ব পাচ্ছে প্রার্থীদের নির্বাচনী ইশতেহার। কে নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়ন হবে যাচাই করছেন। শিক্ষিত ও সৎ প্রার্থীদের গুরুত্ব দিচ্ছেন ভোটাররা।
গতকাল কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সব জায়গায় চলছে নির্বাচনের আলোচনা। চলছে তর্ক-বিতর্ক, সমর্থকরা পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে যুক্তি দিচ্ছেন। আড্ডাতে বেশিরভাগই তরুণ। ব্যানার, ফেস্টুন লাগিয়ে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন প্রার্থীরা। আবার নতুন প্রার্থীরা বর্তমান ও সাবেক দায়িত্বশীলদের ব্যর্থতাকে সামনে আনার চেষ্টা করছেন।
জেলার নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবার কক্সবাজারের চকরিয়া ও মহেশখালী পৌরসভার নির্বাচন হবে এবং কুতুবদিয়ার ৬ টি, মহেশখালীর ৩ টি, টেকনাফের ৪ টি ও পেকুয়ার ১ টি নিয়ে মোট ১৪ টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
কিন্তু বিরুপ আবহাওয়ার কারণে টেকনাফের সেন্টমার্টিনের নির্বাচন হচ্ছে না। দুই পৌরসভায় মেয়র পদে ৮ জন এবং চেয়ারম্যান পদে ৯২ প্রার্থী লড়াই করছেন।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এস.এম শাহাদাত হোসেন জানান, করোনা মহামারির কারণে দু’বার নির্বাচনের স্থগিত করার পর এবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে, আমরা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ উপহার দিব। কোন অন্যায় দেখলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এবার দুই পৌরসভায় ইভিএমের মাধ্যমে ভোট হবে বলে তিনি জানান।
টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী রাশেদ মোহাম্মদ আলী বলেন, নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করে যাচ্ছি। মানুষের সেবা করার কারণে ভোটারদের ভাল সাড়া পাচ্ছি। আবারও নির্বাচিত হব।
মাতারবাড়ীর ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী জি.এম ওয়াহেদুল ইসলাম বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের সাথে কুশল বিনিময় করে যাচ্ছি। একটি আধুনিক ওয়ার্ড গড়তে সকলের সহযোগিতা চাই। ভোটাররা সুষ্ঠু ভোট দিতে পারলে জয়ী হব।
চকরিয়া পৌরসভার স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী জিয়াবুল হক বলেন, পৌরসভায় প্রথম ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হবে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই চকরিয়া পৌরসভার জনগণ।
নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থী ও গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ বলেন, সুষ্ঠু, অবাধ, দৃশ্যমান ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে। কোন সন্ত্রাসীকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। নির্বাচনী মাঠে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব, পুলিশ, আনসারসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করবেন। কেউ আচরণ বিধি ভঙ্গ করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!