Tuesday , December 7 2021
You are here: Home / ঢাকা ও ময়মনসিংহ / ধামরাইয়ে যুবককে বেঁধে মারধর, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ ২৪ জনের নামে মামলা
ধামরাইয়ে যুবককে বেঁধে মারধর, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ ২৪ জনের নামে মামলা

ধামরাইয়ে যুবককে বেঁধে মারধর, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ ২৪ জনের নামে মামলা

রাজিউল হাসান পলাশ (ধামরাই)
ঢাকার ধামরাইয়ের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক যুবককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানসহ ২৪ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। সোমবার রাতে ধামরাই থানায় নির্যাতিত যুবকের ভাই বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। এঘটনায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যানসহ ১২ জনকে পুলিশ আটক করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন ধামরাই থানা পুলিশ।
পুলিশ জানায় সোমবার বিকেলে উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের সূত্রাপুর চৌরাস্তা এলাকায় এই মারধরের ঘটনা ঘটে। ইসরাফিল হোসেন মোটরসাইকেল চালিয়ে এলে অতর্কিতভাবে তাঁর ওপর হামলা চালায় চেয়ারম্যান মজিবর রহমানের সমর্থকেরা।
আটককৃতরা হলেন- বালিয়া ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান (৪৫) ও তার ভাতিজা সিয়াম (২০), সূত্রাপুর শান্তি কমিটির সভাপতি আব্দুল মজিদ (৭০), মজিদের ছেলে সামছুল হক (৪৫) ও নাতি সিহাব (১৭), পশ্চিম সূত্রাপুর মসজিদের সভাপতি মজিবর (৭০), রাজন (৩৫), শামীম (২৫), নাছিমা আক্তার (৩২), রাশেদা বেগম (২৭), মিজানুর রহমান মিজান ও আনিস। এরা সবাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের সূত্রাপুর এলাকার বাসিন্দা।
আহত ইসরাফিল হোসেন (৩২) একই এলাকার শামছুল ইসলামের ছেলে। তিনি সাটুরিয়া উপজেলার একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।
স্থানীয়রা জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে মজিবর রহমানের নেতৃত্বে তাঁর কয়েকজন কর্মী ইসরাফিল হোসেনকে হত্যার উদ্দেশে হাত-পা বেঁধে মারধর করে। পরে এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পরলে এলাকার লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত ইসরাফিল কে উদ্ধারের চেষ্টা করে। কিন্তু মজিবর রহমানের লোকজন দেশীয় অস্ত্র হাতে তাঁদের পাল্টা ধাওয়া করে। এতে ওই ঘটনাস্থলে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে এলাকাবাসী বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান মজিবর রহমানসহ ১২ জন কে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।
ভুক্তভোগী যুবকের ভাই রবিউল আউয়াল বলেন, তার ভাই ইসরাফিল একজা ইট ব্যবসায়ী। গেল ইউপি নির্বাচনে সে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমানের প্রতিপক্ষকে সমর্থন করেছিলো। এরই জেরে আজ বেলা ১২টার দিকে চেয়ারম্যান মজিবর তার লোকজন পাঠিয়ে ইসরাফিলকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে তার ভাইকে সূত্রাপুর বাজারে হাত-পা বেধে লাঠি ও রড দিয়ে বেধরক পেটানো হয়। এসময় স্থানীয়দের খবরে পুলিশের ৪-৫টি গাড়ি উপস্থিত হলে চেয়ারম্যান এলাকার মসজিদে মাইকিং করে আতঙ্ক ছড়ায়। এমনকি যার যা আছে তাই নিয়ে বাজারে হামলা করতে বলে চেয়ারম্যান মজিবর। পরে পুলিশ চেয়ারম্যানসহ তার। ১০-১১ জনকে লোককে ধরে থানায় নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ওয়াহেদ পারভেজ বলেন, বালিয়া এলাকায় ইসরাফিল নামে একজনকে হাত-পা বেঁধে মারধরের ঘটনায় ভুক্তভোগীর ভাই একটি মামলা দায়ের করেছেন, এঘটনায় চেয়ারম্যানসহ ১২ জনকে আটক করা হয়েছে, তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!