Wednesday , January 26 2022
You are here: Home / খুলনা ও বরিশাল / যে জীবন সততার, সে জীবন অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছাবেই : প্রধান বিচারপতি
যে জীবন সততার, সে জীবন অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছাবেই : প্রধান বিচারপতি

যে জীবন সততার, সে জীবন অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছাবেই : প্রধান বিচারপতি

 

কুষ্টিয়া অফিস ॥

বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন যে জীবন সততার সাথে পরিচালিত হয় সে জীবন অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাবেই। বাধা-বিঘ্ন জীবনেরই অংশ। এসব পেরিয়েই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে। সততা, নিষ্ঠা ও পরোপকারী মনোভাবকেও জীবনের অংশ মনে করতে হবে। জীবনে এগুলোর যথাযথ চর্চা থাকলে সে জীবন কখনো কারো অনিষ্ট করতে পারে না। কুষ্টিয়ার কৃতি সন্তান আপীল বিভাগের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি হওয়ায় কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে সংবর্ধনা, নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আ.স.ম আখতারুজ্জামান মাসুমের সভাপতিত্বে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেন, তিনি একদিন এই কুষ্টিয়া বার থেকেই জীবনের পেশাগত অধ্যায় শুরু করেন। সেদিন এই বারের অনেক প্রবীণ আইনজীবি তাকে সহযোগীতা করেছিলেন। তাদের অনেকেই আজ বেঁচে আছেন, অনেকেই বেঁচে নেই। তিনি সবার প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন, জীবনে প্রতিটি স্তরেই আমাদের একে অপরের সহযোগীতা প্রয়োজন হয়। তিনি সবাইকে একে অপরের সহযোগী হবার অনুরোধ জানান। জীবনে বহু উত্থান-পতন আসবে, ধৈর্য ধরতে হবে, অপেক্ষা করতে হবে নিমগ্ন সাধনার ভিতরে। সৎ ও পরোপকারী হতে হবে, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। মানুষ মানুষের ক্ষতি করার চেষ্টা করবে কিন্তু মনোবল হারালে চলবে না। হিংসার বশবর্তী হয়ে কারোর প্রতিভার ও যোগ্যতার অসম্মান করা ঠিক নয়। বিচার বিভাগকে সফল করতে হলে বার ও বিচারিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ছন্দ থাকতে হবে। একে অপরের পরিপূরক হতে হবে। বার ও বিচারিক প্রতিষ্ঠান হচ্ছে দেহ ও ডানার মতো। আমি আমার শপথ অনুযায়ী কুষ্টিয়া সহ সারা বাংলাদেশের মানুষের জন্য ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে সর্বদা সচেষ্ট থাকবো। মহান স্বাধীনতানতার আত্মত্যাগকারী মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা ও বিচার বিভাগের সকল ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের জন্য ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে আমরা সকলে একযোগে কাজ করবো।

সংবর্ধনা সভার সম্মানিত অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম কুষ্টিয়ার সন্তান প্রধান বিচারপতি হলেন। এটা আমাদের কুষ্টিয়াবাসীর জন্য অত্যন্ত গর্বের ও আনন্দের। তিনি ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় অগ্রনী ভূমিকা রাখবেন বলেও প্রত্যাশা করেন।

কুষ্টিয়া আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাসুদ করিম মিঠুর পরিচালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিক, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী, বিচারপতি ড. আখতারুজ্জামান, সুপ্রীম কোর্টের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আকবর।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, কুষ্টিয়া-৩ সদর আসনের সাংসদ মাহাবুব উল আলম হানিফ, বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম সরওয়ার জাহান বাদশাহ, কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, কুষ্টিয়ার মাননীয় জেলা জজ শেখ আবু তাহের। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আসগর আলী, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!