Friday , April 12 2024
You are here: Home / চট্টগ্রাম ও সিলেট / দীঘিনালায় অভিযোগের পরেও থামেনি ইভটিজিং, পাল্টাপাল্টি মামলা

দীঘিনালায় অভিযোগের পরেও থামেনি ইভটিজিং, পাল্টাপাল্টি মামলা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
খাগড়াছড়ি দীঘিনালার বাবুছড়ায় দশম শ্রেনিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিং ও রাস্তায় অকথ্য ভাষায় গালাগালি করার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার বাদশা মিয়ার পুত্র রাব্বির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর পিতা থানায় অভিযোগ করায় তাকে ও তার পরিবারের লোকজনের উপর হামলা ও হুমকি ধামকি প্রদান করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷
ইভটিজিং’র স্বীকার ঐ স্কুলছাত্রীর পিতা অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াতের সময় বখাটে রাব্বি প্রায় সময় নেশা করে আমার মেয়েকে উক্ত্যক্ত করতো এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতো। এ বিষয়ে বখাটে রাব্বির পরিবার ও স্থানীয়ের অবগত  করায় আমাকে ও আমাকে ছেলেকে বিভিন্ন সময়ে মারধর ও হুমকি ধামকি প্রদান করে সে। বিষয়টি আমি সামাজিক ভাবে কোন সুরাহা না পেয়ে আইনের আশ্রয় গ্রহণ করি৷ বর্তমানে বখাটে রাব্বির পরিবার এলাকার অন্য বখাটেদের লেলিয়ে দিয়ে আমার পরিবারের সম্মানহানির চেষ্টা করছে। আমি এর এর বিচার চাই৷
স্কুলছাত্রীর ভাই বলেন, আমার বোনকে উক্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করার আমাকেও মারধর করে অভিযুক্ত রাব্বি ও তার পরিবারের লোকজন। এ বিষয়ে আমরা থানায় অভিযোগ করলে অভিযুক্তরা আদালতের মাধ্যমে উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করে৷ বর্তমানে তারা আমাদের পেছনে নোয়াব আলীর পুত্র সাইফুল ইসলাম বাবু সহ অন্য বখাটেদের লেলিয়ে দিয়েছে৷ বখাটেরা আমাদের বাসায় এসে পুনরায় আমার বোনকে উক্ত্যক্ত ও আমাদের উপর হামলার চেষ্টা করছে৷
এ বিষয়ে অভিযুক্ত রাব্বি ও তার পরিবারের লোকজনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও কোন সদুত্তর পাওয়া যায়নি।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে স্থানীয় জমির উদ্দিন’র পুত্র নুর কবির ও জাবেদ আলী ব্যাপারীর পুত্র মো. মোসলেম জানান, উভয় পক্ষের পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পরও স্থানীয় চোরাবাবু নামে এক বখাটে প্রতিনিয়ত স্কুলছাত্রীর বাড়িতে এসে উক্ত্যক্ত ও হামলার চেষ্টা করেছে। যা আমরা নিজ চোখেই প্রত্যক্ষ করেছি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাবুছড়া কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি  মো. মুজিবুর রহমান বলেন,স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিং করার বিষয়টি শুনেছি। বর্তমানে উভয় পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা চলমান রয়েছে। পরবর্তীতে কে বা কারা পুনরায় ইভটিজিং করছে এ বিষয়ে আমি অবগত নই।
দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম পেয়ার আহমেদ’র সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও কোন সদুত্তর পাওয়া যায়নি।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!