Sunday , June 26 2022
You are here: Home / সারা দেশ / গোয়ালন্দে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম।
গোয়ালন্দে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম।

গোয়ালন্দে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম।

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি:
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ৬৫ বছর বয়সী মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে কুপিয়ে আহত করেছেন দুর্বৃত্তরা।
সোমবার (৬ জুন)  সকাল ৯টার দিকে ওই বৃদ্ধকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান পুলিশ ও কয়েকজন স্থানীয় যুবক। তবে ওই বৃদ্ধের পরিচয় জানা যায়নি।
স্থানীয়রা বলেন, বেশ কয়েক বছর যাবৎ ওই বৃদ্ধ গোয়ালন্দের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে বেড়ায়। তবে দিন ও রাতের বেশির ভাগ সময় তাঁকে পৌর জামতলা এলাকায় দেখা যেত। তিনি গোয়ালন্দ রাবেয়া ইদ্রিস মহিলা ডিগ্রি কলেজের সামনে অবস্থিত যাত্রী ছাউনির নিচে বেশ কিছুদিন থাকার পর আবার অন্য যায়গায় চলে যান। কিন্তু সপ্তাহখানেক হলো আবার এখানে আসেন। বৃদ্ধটি কারও বাড়িতে গিয়ে ভাত চাইতেন না। গাছের ফল পেরে খেতেন এবং অনেকের কাছ থেকে শুধু ফল চাইতেন। তিনি কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ও শারীরিকভাবে অনেকটা দুর্বল ছিলেন। তবে কোনো পাগলামি ও কারো কোনো ক্ষতি করতেন না তিনি। কিন্তু কে বা কারা তাঁকে এভাবে কুপিয়ে আহত করেছেন এ বিষয়ে আমাদের কোনো ধারণা নেই। নাকি তিনি আগের কোনো শত্রুতার শিকার হয়েছেন তাও বলতে পারছি না।
পৌর ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আখের রস বিক্রেতা রতন, অটোচালক সোহেল রানা, শেখ জামাল স্মৃতি সংঘ ক্লাবের সভাপতি ইমরান ফকিরসহ কয়েকজন জানান, তাঁরা সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জামতলা বাজারে অবস্থান করছিলেন। এ সময় স্থানীয় কয়েকজনের কাছ থেকে জানতে পারেন রাবেয়া ইদ্রিস মহিলা ডিগ্রি কলেজের সামনের যাত্রী ছাউনির ভেতরে এক বৃদ্ধ রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তাঁরা তৎক্ষণাৎ সেখানে গিয়ে বৃদ্ধকে বীভৎস অবস্থায় দেখতে পান।
ওই সময় সেখানে একজন হাইওয়ে পুলিশকে দেখতে পান তাঁরা। পরে পুলিশ বলে আমাদের গাড়ি আসছে তারপর বৃদ্ধকে হাসপাতালে নেওয়া হবে। কিন্তু গাড়ি আসতে দেরি দেখে তাঁরা ওই বৃদ্ধকে অটোতে করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। প্রায় এক ঘণ্টা পড়ে থাকে বৃদ্ধের রক্তাক্ত দেহ। পরে পুলিশের নিষেধ না মেনেই তাঁরা বৃদ্ধকে একটা ভ্যানে উঠিয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যান।
গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শাহ্ মুহাম্মদ শরীফ বলেন, বৃদ্ধের মাথায়, কপালে ও হাতে ধারালো অস্ত্রের  গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁকে উদ্ধারের আগে আনুমানিক ৪ থেকে ৬ ঘণ্টা আগে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, বৃদ্ধকে উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে কিছুদিন আগের মানুষিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যার সঙ্গে আজকের এই ঘটনার অনেকটাই মিল রয়েছে।
ওসি আরও বলেন, কে বা কারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাঁদের খুঁজে বের করা হবে। সেই সঙ্গে ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটন করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!