Wednesday , February 8 2023
You are here: Home / খুলনা ও বরিশাল / আলামপুরে আবারো সক্রিয় সন্ত্রাসীরা, বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা 
আলামপুরে আবারো সক্রিয় সন্ত্রাসীরা, বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা 

আলামপুরে আবারো সক্রিয় সন্ত্রাসীরা, বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা 

কুষ্টিয়া অফিস।।

একসময়ের বিএনপি সন্ত্রাসীদের দূর্গখ্যাত আলামপুর ইউনিয়ন এলাকা। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই এলাকায় সন্ত্রাস দমন করে জনজীবনে শান্তি ফিরিয়ে আনেন। সন্ত্রাসীদের অধিকাংশই এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। তাছাড়া বেশকিছু সন্ত্রাসী আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটক হন। তাদের মধ্যে কেউ কেউ আদালত থেকে সাজা পেয়ে কারাগারে আছেন। আবার কেউ কেউ ক্রসফায়ারেও নিহত হয়েছেন।

সেই শান্তির জনপদ আলামপুর ইউনিয়ন এলাকায় আবারো বিএনপি পন্থী সন্ত্রাসী বাহিনী ও তাদের ক্যাডাররা সক্রিয় হওয়ায় অশান্তির‌‌ হাওয়া বইতে শুরু করেছে। যেকোন সময় অশান্ত জনপদে বড় ধরনের সংঘর্ষে প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন ইউনিয়নবাসীরা।

জানা যায়, আলামপুর ইউনিয়ন এলাকার বিএনপি পন্থী চিহ্নিত সন্ত্রাসী টিটু মাষ্টার, কছের, সাইদুল,‌ সদর, উমবাদ, মফি, সালাম সহ আরো অনেকে। উল্লেখিত সন্ত্রাসীরা আবারো ইউনিয়ন এলাকায় নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়েছে। এই সন্ত্রাসী বাহিনীর ছত্রছায়ায় বেড়ে ওঠা ক্যাডারদের মধ্যে অন্যতম- কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও মাদক ব্যবসায়ী হাফিজ, ইউনিয়নের হালদার পাড়ার মাহের শেখের ছেলে মাদক বহনের কাজে নিয়োজিত ফিরোজ শেখ, ইউনিয়নের পুকুরপাড়া এলাকার আনিসুর রহমানের ছেলে যুবদল কর্মী শোভন ও একই এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে নাঈম। এরা সকলেই মাদকাসক্ত যুবক। আধিপত্য বিস্তার করতে বিএনপি পন্থী চিহ্নিত এই সন্ত্রাসী বাহিনী তাদের ক্যাডারদের দিয়ে গত ২০ জানুয়ারী সকালে এলাকার বেশ কয়েকজন যুবকের উপর হামলা চালায়। হামলার শিকার যুবকদের মধ্যে হৃদয়, জুয়েল, তৌফিক ও ইমন গুরুত্বর আহত হন।

আরো জানা যায়, আহতদের পরিবারগুলোকে ঘরবন্দি করে রেখেছেন সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা। আবারো হামলার শিকার হয়ে প্রাণহানির আশঙ্কায় নির্ঘুম রাত কাটাতে হচ্ছে পরিবারগুলোর সদস্যদের। এভাবেই বিএনপি পন্থী সন্ত্রাসী বাহিনী নিজেদের সক্রিয় উপস্থিতি জানান দেওয়ার চেষ্টা করছেন। নিজেদের ক্ষমতা প্রদর্শন করতে তারা প্রতিনিয়ত দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ইউনিয়ন এলাকায় মহড়া দিচ্ছেন। পাশাপাশি যেখানে সেখানে সাধারণ জনসাধারণের উপর হামলা চালাচ্ছেন এই সন্ত্রাসী বাহিনী ও তাদের ক্যাডাররা।

এলাকাবাসীরা জানান, কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাফিজ একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। হাফিজের মাদক (ইয়াবা ও গাজা) ক্রেতার হাতে পৌঁছে দেওয়ার কাজে নিয়োজিত ফিরোজ শেখ, শোভন ও নাঈম। এরা সকলেই শুধুমাত্র মাদক ব্যবসার সহযোগী নয়, মাদক সেবনেরও সহযোগী। ফিরোজ গত ৩/৪ বছর ধরে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। বিএনপির বিভাগীয় সম্মেলনে তার উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। নাঈম ইতিপূর্বে ইয়াবা ও ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট সহ বেশ কয়েকবার আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটক হয়েছেন। সম্প্রতি শোভন ইউনিয়ন যুবদলের পদ পেতে ফরম সংগ্রহ করার পাশাপাশি দৌড়ঝাঁপও শুরু করেছেন।

বিএনপির এই সন্ত্রাসী বাহিনী ইউনিয়ন এলাকায় তাদের হারানো আধিপত্য ফিরিয়ে আনতে শান্ত জনপদকে আবারো অশান্ত করে তুলেছেন। এই সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা না হলে সামনের দিনগুলোতে বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসীরা।

 

 

About দৈনিক সময়ের কাগজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
error: Content is protected !!